ঋণ নিচ্ছেন না উদ্যোক্তারা ব্যাংকে টাকার পাহাড় বিস্তারিত।

ব্যাংকে পড়ে আছে টাকার পাহাড়। বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাবে তা প্রায় ২ লাখ কোটি টাকা। ঋণের সুদ হারও ৬ থেকে ৭ শতাংশে নেমেছে। তবুও উদ্যোক্তারা ঋণ নিচ্ছেন না। হচ্ছে না বিনিয়োগ।

বিশ্লেষকরা বলছেন, ব্যবসায়ীরা অতিমারির কারণে ঝুঁকি নিতে চাচ্ছেন না। যা অর্থনীতিতে দীর্ঘমেয়াদে ক্ষত তৈরি করবে। অনিশ্চয়তা কাটাতে, নিশ্চিত করতে হবে টিকা।

করোনার আগে ছিল টাকার টানাটানি। উৎপাদনশীল খাতে বিনিয়োগ করতে গুনতে হতো চড়া সুদ। যা ব্যবসার খরচ বাড়িয়ে তুলতো।

এসআইবিএল এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট আবু রুশদ আহমেদ ইফতেখার জানান, অতিমারি পরিস্থিতি বদলে দিয়েছে। এখন ব্যাংকে পড়ে আছে বিপুল টাকা। বলা যায়, টাকার পাহাড়। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হিসাবে, তার পরিমাণ দুই লাখ কোটি টাকার কাছাকাছি। এমন পরিস্থিতিতে বিনিয়োগ প্রস্তাবের অপেক্ষায় ব্যাংকাররা।

অর্থবছরের শুরুতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আশা ছিল, ঋণের হার আগের বছরের থেকে বাড়বে অন্তত ১৫ শতাংশ। কিন্তু তা কেবল কাগজে। কম সুদেও ঋণ বেড়েছে মাত্র ৮ থেকে ৯ শতাংশ।

অর্থনীতিবিদ ড. আহসান এইচ মনসুর বলেন, গেল সেপ্টেম্বরে ঋণ ছিল প্রায় সাড়ে ৯ শতাংশ। যা এ অর্থবছরে সর্বোচ্চ। আর মে মাসে নেমে দাঁড়িয়েছে ৮ দশমিক ৩ শতাংশে। অনিশ্চয়তা কাটাতে হবে টিকা দিয়ে। আত্মবিশ্বাস বাড়াতে না পারলে ঝুঁকি নিয়ে কেউ বিনিয়োগ আসবেন না, বলে মত সংশ্লিষ্টদে।

Mahfuz Mia

মাহফুজ মিয়া বাংলাদেশের অন্যতম শিক্ষা বিষয়ক ওয়েবসাইট পড়ালেখা ২৪.কম এর প্রতিষ্ঠাতা ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর

Back to top button